এই ট্রেন গুলোর গতিবেগ দেখলে আপনি অবাক হবেন

তথ্য ও প্রযুক্তি

আদিমকাল থেকেই মানুষ যত আধুনিক জগতের দিকে এগিয়ে এসেছে মানুষের যাতায়াত ব্যবস্থার ততই পরিবর্তন হয়েছে। বর্তমানে মানুষ মোটর বাইক, বাস, মাইক্রো বাস, ট্রেন, প্লেন ইত্যাদিকে ব্যবহার করে যাতায়াতের মাধ্যম হিসেবে। এগুলোর মধ্যে ট্রেন মানুষের যাতায়াতে অনেক বড় ভূমিকা রাখে। আর এখন মানুষে এই ট্রেন ব্যবস্থাকে এতটাই উন্নত করেছে যে খুবই কম সময়ে তারা তাদের গন্তব্যে পৌঁছাতে পারে।  আজ আমরা বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত গতি সম্পন্ন  কিছু ট্রেন সম্পর্কে জানতে চলেছি।

 

ই আর ২০০ (ER 200): এই ট্রেনটি সোভিয়েত রাসিয়াতে ব্যবহার করা হয়। এই ট্রেনটি নির্মান করেছে আর ভি আর (RVR) অর্থাৎ রাইগাস ভাগনভেস রুপ্নিকা ( Rigas Vagonbuves Rupnica ) । এটি একটি হাই স্পিড ডাইরেক্ট কারেন্ট ইন্টারসিটি ট্রেন। এই ট্রেনটির গতিবেগ প্রতি ঘন্টায় ২১০ কি.মি.।

ই টি আর ৫০০ (ETR 500): এই ট্রেনটির পুরো নাম ইলেক্ট্রো ট্রেনো রেপিডো ৫০০। এই ট্রেনটি ইতালিতে ব্যবহার করা হয়। এই ট্রেনটির সর্বচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৩০০ কি.মি।

????????????????????????????????????

চায়না স্টার (China Star): চিনে দ্রুতগামী ট্রেন তৈরি করার সময় সর্ব প্রথম এই ট্রেনটিই তৈরি করা হয়েছিল। এই ট্রেনটির ঘন্টায় সর্বচ্চ গতিবেগ ৩২১ কি.মি./ঘন্টা। এই ট্রেনে ৩টি আলাদা আলাদা দরজা আছে যা ট্রেনটিকে ফাস্ট ক্লাস, সেকেন্ড ক্লাস এবং থার্ড ক্লাসে বিভক্ত করেছে।

আই সি ই ৫ (ICE 5): এই ট্রেনটি হলো আই সি ই ৫ ইন্টারসিটি এক্সপেরিমেন্টাল। পরবর্তী কালে এর নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় আই সি ই ৫। একটা এক্সপেরিমেন্ট করার জন্য এই ট্রেনটি চালু করা হয়েছিল। এই ট্রেনের সর্বোচ্চ গতি ৩২৪ কি.মি/ঘন্টা।

টি এইচ এস আর ৭০০টি (THSR 700T): টি এইচ এস আর এর অর্থ হলো তাইওয়ান হাইস্পিড রেল। এই ট্রেনটি জাপানে ব্যবহার করা হয়। এটি একটি হাইস্পিড ইলেকট্রিক মাল্টিপল ইউনিট ট্রেন। এই ট্রেনটির সর্বোচ্চ গতিবেগ ৩৫০ কি.মি/ঘন্টা।

এ ভি ই ১০৩ (AVE 103): এ ভি ই সিরিজের সবচেয়ে দ্রুতগামী ট্রেন হলো এ ভি ই ১০৩। এই ট্রেনটি স্পেনে ব্যবহার করা হয়। স্পেনের রেইল কম্পানি আর ই এন এফ ই (RENFE) এই ট্রেনটি তৈরি করেছে। এই ট্রেনের সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৪০৪ কি.মি।

সি আর এইস ৩ (CRH 3): এটি সিমেন্স ভেলারো হাই স্পিড ট্রেনের একটি ভার্সন। এই ট্রেনটি চিনে ব্যবহার করা হয়। এই ট্রেনটির সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৪৮৭ কি.মি।

সিমেন্স ট্রান্সরেপিড (Siemens Transrapid): এটি হলো পৃথিবীর ৩য় সর্বোচ্চ দ্রুতগামী ট্রেন। এটি জার্মান প্রযুক্তির এক অসাধারণ নমুনা। এই ট্রেনের সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৫০১ কি.মি।

টি জি ভি (TGV): এটি হলো পৃথিবীর ২য় সর্বোচ্চ দ্রুতগামী ট্রেন।  এই ট্রেনটি বি১৫০ নামেও পরিচিত। এই ট্রেনটি ফ্রান্সে ব্যবহার করা হয়। ট্রেনটির সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘন্টায় ৫৭৪ কি.মি।

জে আর মেগলাভ (JR Maglev): এটি হলো পৃথিবীর সর্বোচ্চ দ্রুতগামী ট্রেন। এই ট্রেনটি জাপানে ব্যবহার করা হয়। এই ট্রেনের সমাস গতি বেগের আর কোনো ট্রেন এখনও প্রযন্ত তৈরি হয়নি। এই ট্রেনের সর্বোচ্চ গতিবেগ প্রতি ঘন্টায় ৫৮১ কি.মি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *