রোজার মাসে সুস্থ থাকার উপায়

লাইফস্টাইল

সিয়াম সাধনার মাস রমজান। প্রত্যেক বছর এই রমজান মাসটি সকল মুসলমান সৃষ্টিকর্তাকে খুশি করার জন্য খুব আগ্রহ নিয়ে রোজা পালন করেন। রোজার সময় সারাদিন কিছু না খেয়ে আমরা সবাই সন্ধ্যার পরে ইফতারের মাধ্যমে রোজা ভঙ্গ করি।

অনেক সময় দেখা যায় সারাদিন না খেয়ে থাকার কারণে ইফতারের সময় না বুঝে আমরা অনেক খাবার খেয়ে ফেলি। এর ফলে আমরা রাতের ইবাদতগুলো ঠিকমত করতে পারিনা। আবার অনেক সময় অসুস্থ হয়ে পরবর্তী রোজা রাখতেও পারিনা। তাই আমাদের জানা দরকার কি কি খাবার খেয়ে এবং দৈনিক কাজগুলো কিভাবে করে আপনি সুস্থ থাকতে পারেন। এজন্য  আপনাকে শুধু কিছু জিনিস মাথায় রাখতে হবে যেমন,

১। ইফতারে তেলে ভাজা জিনিস না রাখার চেষ্টা করবেন। যতটা সম্ভব আপনার ইফতারে ফল জাতীয় খাবার রাখবেন। আম, পেয়ারা, কলা, খেজুর, লিচু, তরমুজ ইত্যাদি ফল খাওয়া দরকার। এগুলো শরীরের ভিটামিন, মিনারেল এবং পানির চাহিদা মেটাতে এবং শরীরকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করবে।

২। ইফতারের সময় অনেকে অতিরিক্ত পানি পান করে থাকেন। এটা থেকে বিরত থাকুন। পানি পান করবেন কিন্তু শুধু ইফতারের সময়ই নয় রাতে অল্প অল্প করে পান করুন। এতে আপনি সুস্থতা বোধ করবেন।

৩। পরিমিত খাবার গ্রহণ করুন। অনেকে মনে করে সারাদিন না খেয়ে থাকতে হবে, তাই বেশি খাবার খেয়ে নিই। এমন কাজ কখনো করবেনা কারণ অতিরিক্ত কোন কিছু ভালো না। সুস্থ থাকার জন্য পরিমিত খাবার দরকার অতিরিক্ত নয়। তবে খাবারের তালিকায় শাক-সবজি রাখার চেষ্টা করবেন কারণ এগুলো সঠিকভাবে হজম হতে সাহায্য করে।

৪।  ভারি কাজ এই রোজার মাসের জন্য বন্ধ রাখুন। কারণ রোজা রাখার ফলে শরীর এমনিতেই অনেক দুর্বল থাকে। নিজের কাজের রুটিন তৈরি করুন। এতে আপনার সময়মত কাজ ও হবে আবার রোজার দিনে পরিশ্রমটাও কমবে। আপনি কাজের ফাঁকে সুকৌশলে বিশ্রাম করে নিতে পারেন।

৫। ইফতারে শরবতের ব্যবস্থা করতে পারেন। লেবুর শরবত অনেক কার্যকরি।

৬। যাদের রোজা থাকা অবস্থায় বেশি বেশি পানি পিপাসা লাগে, তারা সেহরীর পরে এলাচের দুই বা তিনটি দানা চিবিয়ে খেয়ে নিবেন। এতে আপনার সারাদিন পানি পিপাসা লাগবেনা আবার গলাও শুকিয়ে আসবেনা।

৭। রোজার মাসে হালকা ব্যায়াম করুন। এতে শরীরের কার্যক্রম স্বাভাবিক থাকবে। তবে বেশি পরিশ্রম হয় এমন ব্যায়াম করা যাবে না।

সুতরাং উপরের বিষয়গুলো মেনে চলার চেষ্টা করবেন। এতে আপনি সুস্থ থাকবেন এবং আপনার পরিবারকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করতে পারবেন। এখন এমনিতেই চারিদিকে করোনা ভাইরাসের পাদুর্ভাব বেড়ে চলেছে। আর অসুস্থ শরীরে করোনা ভাইরাস দ্রুত আক্রমণ করতে পারে। তাই আমাদের সবাইকে সুস্থ থাকাটা জরুরী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *